logo
Wednesday , 4 January 2023 | [bangla_date]
  1. অন্যান্য
  2. অর্থনীতি
  3. আন্তর্জাতিক
  4. ক্যারিয়ার ভাবনা
  5. খেলা
  6. জাতীয়
  7. টেক নিউজ
  8. দেশের খবর
  9. প্রবাস
  10. ফিচার
  11. বিনোদন
  12. রাজনীতি
  13. লাইফস্টাইল
  14. সম্পাদকীয়
  15. সাফল্য

একের পর এক জাল হচ্ছে হাইকোর্টের আদেশ

প্রতিবেদক
admin
January 4, 2023 9:27 am

হাইকোর্টে মামলা না করেই প্রস্তুত করা হয়েছে আদেশ। প্রস্তুতকৃত ঐ জাল আদেশে যে তারিখ দেওয়া হয়েছে সেদিন ছিল শুক্রবার। বন্ধের দিন উল্লেখ করে উচ্চ আদালতের দুই বিচারপতির নাম ব্যবহার করে এই জাল আদেশ প্রস্তুতের ঘটনা ধরা পড়েছে। এই জাল আদেশ প্রস্তুত করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অবৈধভাবে চারটি ইটভাটা পরিচালনার সুযোগ নেওয়া হয়েছে।

শুধু এই চারটি ইটভাটাই নয়, চট্টগ্রামের দুটি পরিবহন কোম্পানির ট্রেডমার্ক ব্যবহার নিয়ে চলমান দ্বন্দ্বে প্রস্তুত করা হয়েছে উচ্চ আদালতের জাল আদেশ। একের পর এক এই জাল আদেশ প্রস্তুত ও তা ধরা পড়ার ঘটনা ঘটছে উচ্চ আদালতে। আনা হচ্ছে সংশ্লিষ্ট বেঞ্চের নজরেও। সংশ্লিষ্ট বেঞ্চের বিচারপতিরা এ ধরনের জাল আদেশ প্রস্তুতের ঘটনায় যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরসহ আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণে রেজিস্ট্রার জেনারেলকে নির্দেশ দিয়েছেন। ঐ নির্দেশের পরিপ্রেক্ষিতে সুপ্রিম কোর্টের পক্ষ থেকে মামলাও দায়ের হয়েছে। কিন্তু বেপরোয়া এই জালিয়াত চক্রের লাগাম কোনোভাবেই টেনে ধরা যাচ্ছে না।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে রাষ্ট্রের শীর্ষ আইন কর্মকর্তা অ্যাটর্নি জেনারেল অ্যাডভোকেট এএম আমিন উদ্দিন ইত্তেফাককে বলেন, আমরা প্রায়শই দেখতে পাচ্ছি মামলা না করেই জালিয়াতির আশ্রয় নিয়ে উচ্চ আদালতের আদেশ প্রস্তুত করছে একটি চক্র। সর্বশেষ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার চারটি ইটভাটা পরিচালনা নিয়ে একটি জাল আদেশ সৃজন করা হয়েছে। যাতে অবৈধ ইটভাটগুলো চলতে পারে। যেখানে মামলাই করা হয়নি সেখানে এ ধরনের আদেশ প্রস্তুত করা ভয়াবহ অপরাধ। এ ধরনের অপরাধের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত পদক্ষেপ নিতে হবে। তিনি বলেন, যেসব কোর্টের বিচারপতিদের নাম ব্যবহার করে এ ধরনের জাল আদেশ প্রস্তুত করা হচ্ছে সেই সব বেঞ্চ থেকে জড়িতদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে আদেশ দেওয়া হচ্ছে। এই আদেশ বাস্তবায়নের অগ্রগতি কতটুকু সেটা সংশ্লিষ্ট বেঞ্চের ফলোআপে রাখা দরকার। তাহলে এ ধরনের জালিয়াতি বন্ধ করা সম্ভব। এই ফলোআপ না থাকায় জালিয়াতি রোধে তৎপর হচ্ছে না সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষগুলো।

শুধু মামলা না করেই জাল আদেশ প্রস্তুতের পাশাপাশি অস্ত্র, হত্যা, ধর্ষণ মামলাসহ বিভিন্ন গুরুতর অপরাধের মামলায় উচ্চ আদালতের সঙ্গে প্রতারণা করে হাসিল করা হয়েছে একের পর এক জামিন। মামলার মূল এজাহার, জব্দ তালিকা, চার্জশিট এমনকি অধস্তন আদালতের রায় ও আদেশও পালটে দিয়ে জামিন জালিয়াতির ঘটনা ঘটানো হয়েছে। এসব জালিয়াতির ঘটনায় কখনো মামলার তদবিরকারক, কিছু অসাধু আইনজীবী ও আইনজীবী সহকারীর নাম উঠে এসেছে। বছরের পর বছর এ ধরনের জালিয়াতির ঘটনা নজরে আসার পর সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার কার্যালয় থেকে মামলা করা হয়েছে। কিন্তু সেই সব মামলার তদন্ত ও বিচারের অগ্রগতি কতটুকু সেই বিষয়ে সর্বশেষ কোনো তথ্য নেই রেজিস্ট্রার কার্যালয়ে। আইন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এ ধরনের গুরুতর অপরাধের মামলার তদন্ত ও বিচারের বিষয়টি সব সময় তদারকি করা দরকার।

সর্বশেষ - রাজনীতি

আপনার জন্য নির্বাচিত