বিএনপির জন্মই হত্যা-খুন আর ষড়যন্ত্রের মধ্যদিয়ে : মতিয়া চৌধুরী

adminadmin
  প্রকাশিত হয়েছেঃ   05 June 2022

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, বিএনপির জন্মই হলো হত্যা-খুন এবং ষড়যন্ত্রের মধ্যদিয়ে। তারা ( বিএনপি) এ কথা অস্বীকার করতে পারবে না। তারাই ১৫ আগস্ট ও ৩ নভেম্বরর সঙ্গে জড়িত ছিল, তারা তো অস্বীকার করে না। যখন তারা বলে ‘১৫ আগস্টের হাতিয়ার গর্জে উঠুক আরেক বার’। এ কথায় তারা ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত বড় গলায় বলে স্বীকার করে।

শনিবার দুপুরে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে বিএনপি-জামায়াত কর্তৃক হত্যার হুমকি এবং কটূক্তির প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ এসব কথা বলেন তিনি।
সমাবেশ শেষে একটি প্রতিবাদ মিছিল করা হয়। মিছিল থেকে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েলের কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়।

কৃষক লীগের সভাপতি কৃষিবিদ সমীর চন্দের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট উম্মে কুলসুম স্মৃতির সঞ্চালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তৃতা করেন আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস, কৃষক লীগের সহ-সভাপতি কৃষিবিদ শাখাওয়াত হোসেন সুইট, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ বিশ্বনাথ সরকার বিটু, সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুজ্জামান বিপ্লব, নূরে আলম সিদ্দিকী হক, দপ্তর সম্পাদক রেজাউল করিম রেজা প্রমুখ।

মতিয়া চৌধুরী বলেন, বিএনপি হচ্ছে কৃষক-শ্রমিক ও গণবিরোধী। বিএনপি নালিশ করে বালিশ পেতে চায়। বিএনপি নালিশের ঢং হলো বালিশ পাওয়া। তাদের কোনো অর্জন নেই। আমরা জানি বিএনপির আমলে সার ছিল না, বিদ্যুৎ ছিল না। যোগাযোগ ব্যবস্থা ভালো ছিল না। একমাত্র হত্যা ষড়যন্ত্রের রাজনীতিতে তারা বিশ্বাসী।

সাবেক কৃষিমন্ত্রী বলেন, আজকে খালেদা জিয়া অন্যায় জুলুম ও তার পাপের কাফফারা দিচ্ছেন। শেখ হাসিনার মহানুভবতার কারণে খালেদা জিয়া বাড়িতে বসে কাজের বেটি সঙ্গে নিয়ে জেল খাটে। খালেদা জিয়া ও তার পুত্র ষড়যন্ত্র করছে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে কৃষক লীগ, শ্রমিক লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ যে প্রতিরোধ গড়ে তুলবে তা ভেদ করে বিএনপি এগোতে পারে নাই, পারবে না।

তিনি বলেন, দেশে কৃষক-শ্রমিক মেহনতী মানুষ যদি উন্নয়ন চায়, যদি গণতন্ত্র চায়, যদি সমৃদ্ধি চায়, পেট ভরে ভাত খেতে চায়, পুষ্টিকর খাবার চায়, তাহলে শেখ হাসিনার বিকল্প নেই বলেও যোগ করেন প্রবীণ এই রাজনীতিবিদ।

আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস বলেন, বিএনপির রাজনীতি হচ্ছে ষড়যন্ত্র আর চক্রান্তের। তারা মানুষের জন্য রাজনীতি করে না। ক্ষমতার জন্য রাজনীতি করে, কারণ তারা যখনই ক্ষমতায় বসে তখনই দেশের অর্থ লুটপাট করে বিদেশ পাঠায়। সে কারণে দেশের ভেতরে অস্থিতিশীলতা তৈরির পাঁয়তারা করছে। এ ব্যাপারে আওয়ামী লীগের প্রতিটি সহযোগী সংগঠনকে সজাগ ও সতর্ক থাকতে হবে। তারা আরেক ৭৫ ঘটাতে চায়।

কৃষক লীগের সভাপতি সমীর চন্দ বলেন, কৃষকরত্ন শেখ হাসিনাকে হুমকি দিয়ে বিএনপি যে খুনের রাজনীতি করে তা প্রমাণ করেছে। আমি বলি, সেদিন ভুলে যান। এখন আর ৭৫’র ১৫ আগস্ট ঘটানো সম্ভব নয়। আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা সজাগ আছে। বেশি বাড়াবাড়ি করলে বিএনপিকে ঘর থেকে বের হতে দিব না।

আপনার মতামত লিখুন :