মৌলবাদীদের মতোই বেগম জিয়াও ভাস্কর্য ও মূর্তির পার্থক্য বুঝেন না!

adminadmin
  প্রকাশিত হয়েছেঃ   03 December 2020

নিউজ ডেস্ক: শুধু মৌলবাদী প্রতিক্রিয়াশীল চক্রই নয় বরং দুর্নীতি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াও ভাস্কর্য ও মূর্তির মধ্যকার পার্থক্য বুঝেন না। সুতরাং মূর্তি ও ভাস্কর্য নিয়ে যারা হইচই করছে তারা নিতান্তই কর্মহীন বলেই এমনটা করছে। সূত্র বলছে, হইচই করার চেয়ে হুজুরদের নিরাপদে থেকে আল্লাহ-রসুলের নাম নেয়া উচিত বলে মনে করেন বেগম জিয়া। যাদের সঠিক জ্ঞান নেই তারাই ভাস্কর্য নিয়ে অহেতুক লাফালাফি করছে বলে ধারণা বিএনপি নেত্রীর।

বেগম জিয়ার গুলশানের বাড়ি ফিরোজার গোপন সূত্রে জানা গেছে, পত্র-পত্রিকা ও অনলাইনের মাধ্যমে ভাস্কর্য নির্মাণ নিয়ে হেফাজতের নেতাদের ভাস্কর্য বিরোধী আন্দোলনের বিষয়ে জেনেছেন বেগম জিয়া। কিন্তু ভাস্কর্য কি সেটি নিজেও ঠিকমতো বোঝেন না বিএনপি নেত্রী। শিল্প-সাহিত্য কিংবা ঐতিহ্যগত বিষয়গুলো নিয়ে বেগম জিয়ার শুরু থেকে আগ্রহ ছিলো না। যার কারণে ভাস্কর্য নিয়ে যারা হইচই করছে তাদের বোকা মনে করছেন বেগম জিয়া। ভাস্কর্য কি ইসলামবিরোধী বা ভাস্কর্য নির্মাণ করলেই কি বাংলাদেশের মানুষ বিধর্মী হয়ে যাবে, সেটি নিয়ে প্রথমে গবেষণা করতে বলেছেন বিএনপি নেত্রী। আগে হুজুরদের বিষয়টি নিয়ে বিস্তর গবেষণা করা প্রয়োজন। কারণ অনেকেই না বুঝে হয়ত একটি ছোট বিষয় নিয়ে করোনার মধ্যে গোলমাল করছেন।

বিএনপি নেত্রীর মতে, ভাস্কর্য নির্মাণ নিয়ে হুজুরদের গোলমাল পরিহার করে আল্লাহ-রসুলের নাম নেয়া উচিত। তারা যা বুঝে না, তা নিয়ে বাড়াবাড়ি না করে বরং করোনা থেকে মুক্তির জন্য দোয়া করতে পারেন। ভাস্কর্য যদি ইসলামে নিষিদ্ধই হতো তাহলে পাকিস্তানে তো এতে সংখ্যক ভাস্কর্য থাকত না। তাই করোনার মধ্যে এসব নিয়ে গোলমাল বন্ধ করে হুজুরদের রাস্তা ছেড়ে মসজিদ-মাদ্রাসায় ফিরে যাওয়াকেই উত্তম মনে করছেন বেগম জিয়া। না বুঝে যেকোনো বিষয়ে উত্তেজনা সৃষ্টি করাকে মূর্খতা বলে মনে করছেন বিএনপি নেত্রী।

আপনার মতামত লিখুন :