সিলেটে পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনে যুবককে হত্যার ঘটনায় মামলা


  প্রকাশিত হয়েছেঃ   12 October 2020

সিলেটের বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে রায়হান উদ্দিন (৩৪) নামের এক যুবককে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে তার পরিবার।

ঘটনার প্রথম দিকে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ছিনতাইকালে গণপিটুনিতে রায়হানের মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি করলেও নির্যাতনের অভিযোগ ওঠার পর ঘটনাটি তদন্তের আশ্বাস দিয়েছেন তারা।

তবে পুলিশ যেখানে গণপিটুনির কথা বলছে, সিটি করপোরেশনের সিসি টিভি ফুটেজে ওই এলাকায় এমন কোনও ঘটনার সত্যতা মেলেনি।

এঘটনায় রোববার দিবাগত রাত আড়াই টায় সিলেট মহানগর পুলিশের (এসএমপি) কোতোয়ালি থানায় মামলা দায়ের করছেন নিহতের স্ত্রী তাহমিনা আক্তার তান্নি।

এ মামলাটি রুজু করেছেন কোতোয়ালি থানার ওসি (তদন্ত) সৌমেন মৈত্র।

মামলায় অজ্ঞাতদের আসামি করা হয়েছে। রাত সাড়ে ৩টায় যুগান্তরকে মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নিহত রায়হানের মামাতো ভাই আব্দুর রহমান।

এদিকে, নগরীর কাষ্টঘর এলাকা সিলেট সিটি করপোরেশনের ১৪ নং ওয়ার্ডের অন্তর্ভুক্ত। এই এলাকার পুরোটাই সিসিটিভির ক্যামেরার আওতাভুক্ত। এসব ক্যামেরার মনিটর রয়েছে ১৪ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম মুনিমের কার্যালয়ে।

রোববার রাতে মুনিমের কার্যালয়ে গিয়ে শনিবার রাত ১২টা থেকে রোববার সকাল ৭টা পর্যন্ত কাষ্টঘর এলাকার সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়। এসব ফুটেজে কোনো গণপিটুনির ঘটনা দেখা যায়নি। এমনকি এই সময়ে কাষ্টঘর এলাকায় পুলিশের কোনো টহলও দেখা যায়নি।

কাউন্সিলর মুনিম বলেন, সিসিটিভির ফুটেজ দেখেছি। শনিবার রাত থেকে রোববার সকাল পর্যন্ত ওই এলাকার ফুটেজে সন্দেহজনক কিছু চোখে পড়েনি। এছাড়া আমি কয়েকজন স্থানীয় বাসিন্দার সাথে কথা বলেছি। তারাও এরকম কিছু ঘটেছে বলে শুনেননি।

এছাড়া কাষ্টঘর এলাকার একাধিক ব্যবসায়ী ও বাসিন্দাদের সাথে এই প্রতিবেদকের কথা হয়। তারা কেউই রাতে বা ভোরের দিকে কোনো গণপিটুনির কথা শুনেননি। কোনো চিৎকার চেঁচামেচিও শুনেননি তারা।

তবে সকালে কাষ্টঘর পূজামণ্ডপের আশপাশের এলাকায় পুলিশ গিয়ে টহল দেয় বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

কাষ্টঘর পূজা মণ্ডপের পাশেই বাসা আইনজীবী সুমিত শ্যাম পলের। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, প্রায় রাতেই এই এলাকায় মাদকসেবীদের চেঁচামেচি শোনা যায়। পুলিশের বাঁশির শব্দও শোনা যায়। তবে শনিবার রাতে বা রোববার ভোরে এমন কিছু শুনিনি। গণপিটুনির ঘটনা ঘটলে তো চিৎকার শোনা যেতো।

তিনি জানান, রোববার সকাল ১০টার দিকে এলাকায় পুলিশ আসে। এসময় তারা জানায়, ভোরে এই এলাকায় গণপিটুনিতে এক যুবককে হত্যা করা হয়েছে।

অপরদিকে, রায়হান হত্যার প্রতিবাদে রোববার বিকেলে নগরীর আখালিয়া এলাকায় সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কে বিক্ষোভ করেছে স্থানীয় এলাকাবাসী।

মাউন্ট এডোরা হাসপাতালের সামনে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করেন তারা। এলাকাবাসীরও অভিযোগ, পুলিশ হেফাজতে খুন হয়েছেন রায়হান।

জাতীয়

আপনার মতামত লিখুন :