logo
বৃহস্পতিবার , ৮ ডিসেম্বর ২০২২ | ২০শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. অন্যান্য
  2. অর্থনীতি
  3. আন্তর্জাতিক
  4. ক্যারিয়ার ভাবনা
  5. খেলা
  6. জাতীয়
  7. টেক নিউজ
  8. দেশের খবর
  9. প্রবাস
  10. ফিচার
  11. বিনোদন
  12. রাজনীতি
  13. লাইফস্টাইল
  14. সম্পাদকীয়
  15. সাফল্য

কিছুতেই নয়াপল্টনে সমাবেশ নয়, জানিয়ে দিল ডিএমপি

প্রতিবেদক
admin
ডিসেম্বর ৮, ২০২২ ৯:৫৯ পূর্বাহ্ণ

১০ ডিসেম্বর বিএনপির সমাবেশ নয়াপল্টনের রাস্তায় করতে দেওয়া হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুক। বুধবার বিকেলে জরুরি সংবাদ সম্মেলন করে ডিএমপি কমিশনার এ কথা জানান।

অন্যদিকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান একটি অনুষ্ঠানে বলেছেন, রাস্তা বন্ধ করে সমাবেশ করলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী। এদিন রাজধানীর বিজয় সরণিতে একটি ব্যাংকের শাখা উদ্বোধনের পর সাংবাদিকদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, রাস্তা বন্ধ করে সমাবেশ করলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী।

বিএনপির সমাবেশে সরকারের পক্ষ থেকে কোনো বাধা দেওয়া হচ্ছে না। তবে দেশের নিয়ম মেনে তাদের সব কিছু করতে হবে। 

তিনি আরো বলেন, বিএনপিকে দেশের প্রচলিত নিয়ম মেনেই সভা-সমাবেশ করতে হবে। ২০-২৫ লাখ মানুষের সমাগম ঢাকায় সম্ভব না। তবু তারা পল্টনেই কেন সমাবেশ করতে চায়, তা খতিয়ে দেখবে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী। তারা (বিএনপি) যে ঘোষণা দিচ্ছে এখানে (পল্টনে) বসেই তারা ভবিষ্যতে রাষ্ট্র পরিচালনা করবে। সেগুলো যদি হয়ে থাকে তাহলে সরকার আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবে। সব দলের বড় সমাবেশের জন্য সোহরাওয়ার্দী উদ্যান বরাদ্দ দেওয়া হয়। ১০ ডিসেম্বর বিএনপির সমাবেশকে ঘিরে সরকার আইন প্রতিষ্ঠিত করা ও মানুষের জানমাল রক্ষায় যা করা দরকার তাই করবে। ২০-২৫ লাখ মানুষের সমাগম ঢাকায় সম্ভব না। বড় সমাবেশ হলে সোহরাওয়ার্দীতে হয়। কিন্তু বিএনপি কেন পল্টনে সমাবেশ করতে চায় এখন সেটিও খতিয়ে দেখতে হবে।

বুধবার বিকালে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে জরুরি সংবাদ সম্মেলন ডাকা হয় ডিএমপির তরফ থেকে। বিএনপির ১০ ডিসেম্বরের সমবেশের স্থান নিয়ে ডিএমপি কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুক বলেন, রাস্তার ওপর জনসভার অনুমতি দেবে না পুলিশ। নিয়ম ভাঙলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, ‘রাজধানীর নয়াপল্টনে সমাবেশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি। তারা আশা করছে, সেখানে ১০ লক্ষাধিক লোক হতে পারে। কিন্তু সেখানে ৭০-৮০ হাজার লোকের জয়গায় দেওয়া যাবে। তাই আমরা আইন-শৃঙ্খলার স্বার্থে ইজতেমা মাঠে ও পূর্বাচলে সমাবেশ করার জন্য বলছি। ’

এদিকে ১০ লাখ লোকের জমায়েত করলে জনদুর্ভোগ ও ঝুঁকি বাড়বে বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘তবু তারা নয়াপল্টনে আয়োজন করতে চেয়েছিল। তারা (বিএনপি) সোহরাওয়ার্দী ও কালশী মাঠে সমাবেশ করতে পারে। বড় কোনো মাঠে করলেও সমস্যা নেই। আইনের মধ্যে থেকে রাজনৈতিক সমাবেশ করলে সমস্যা নেই। আমরা সব ধরনের নিরাপত্তা দেব। আগেও পুলিশ সার্বিক নিরাপত্তা দিয়েছে, এবারও দেবে। নিরাপত্তার কোনো ঘাটতি হবে না। রাস্তার ওপর জনসভার অনুমতি দেবে না পুলিশ। তবু নিয়ম ভাঙলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ’

ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘আজকে (বুধবার) কোনো সমাবেশ নাই, তবু আজ উনারা জমায়েত হয়েছেন। আমাদের নিয়মিত অভিযান চলছে। বিএনপি অফিস থেকে ককটেল বিস্ফোরণ হয়েছে। তারা চাল, ডাল নিয়ে এখানে এসেছে। আজকের মতো অফিশিয়াল একটি দিনে তারা রাস্তা বন্ধ করতে পারে না। ’ এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ১০ ডিসেম্বরের সমাবেশ বিএনপি কেন সোহরাওয়ার্দীতে করতে চাচ্ছে না, সেটা তাদের ব্যাপার।

সর্বশেষ - রাজনীতি

আপনার জন্য নির্বাচিত