logo
রবিবার , ১৯ জুন ২০২২ | ২৩শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. অন্যান্য
  2. অর্থনীতি
  3. আন্তর্জাতিক
  4. ক্যারিয়ার ভাবনা
  5. খেলা
  6. জাতীয়
  7. টেক নিউজ
  8. দেশের খবর
  9. প্রবাস
  10. ফিচার
  11. বিনোদন
  12. রাজনীতি
  13. লাইফস্টাইল
  14. সম্পাদকীয়
  15. সাফল্য

ওসমানী মেডিক্যালে চার ফুট পানি, অস্ত্রোপচার বন্ধ

প্রতিবেদক
admin
জুন ১৯, ২০২২ ৯:২১ পূর্বাহ্ণ

বন্যার পানিতে ডুবে গেছে সিলেটের ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল এলাকা। এতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে চিকিৎসাসেবা। গতকাল তোলা। ছবি : কালের কণ্ঠ
অ- অ অ+

সিলেট বিভাগের চিকিৎসাসেবার সর্ববৃহৎ প্রতিষ্ঠান ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল। পাহাড়ি ঢল আর ভারি বর্ষণে এই হাসপাতালও ডুবে গেছে। চার ফুট পানি মাড়িয়ে চলাচল করতে সবাইকে হিমশিম খেতে হচ্ছে। চিকিৎসাসেবা চরমভাবে বিঘ্নিত হচ্ছে।

গতকাল শনিবার সকাল থেকে সিলেট নগরে পানি বাড়তে শুরু করে। সকাল সাড়ে ১১টায় চার ফুটের মতো পানি উঠে যায় নগরের ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। এতে হাসপাতালের আউটডোর, ইমার্জেন্সি, প্রশাসনিক ব্লক ও নিচতলার ওয়ার্ডে পানি ঢুকে যায়। পরে নিচতলার রোগীদের দোতলা ও তিনতলায় স্থানান্তর করা হয়। দুপুর ১২টার দিকে সার্জারি বিভাগে এক রোগীর অস্ত্রোপচার করার সময় বিদ্যুৎ চলে যায়। এতে অস্ত্রোপচার শেষ করতে চিকিৎসকদের ভীষণ বেগ পেতে হয়। এরপর আর কোনো রোগীর অস্ত্রোপচার করা সম্ভব হয়নি।

গতকাল বিকেল ৩টার দিকে সরেজমিনে হাসপাতালে গিয়ে দেখা গেছে, অন্তত চার ফুট পানিতে ডুবে আছে হাসপাতাল এলাকা। তীব্র স্রোতের কারণে ভেতরে ঢুকতে বেগ পেতে হচ্ছে মানুষকে। হাসপাতাল এলাকা থেকে সব অ্যাম্বুল্যান্সসহ যানবাহন সরিয়ে নেওয়া হয়।

হাসপাতালের ফটকের কাছে কথা হয় সেবুল মিয়া নামের একজন রোগীর স্বজনের সঙ্গে। তিনি শহরতলির আখালিয়া থেকে রোগী নিয়ে অনেক কষ্টে হাসপাতালের কাছাকাছি এসে পৌঁছেন। কিন্তু কিভাবে রোগীকে ভেতরে নিয়ে যাবেন ভেবে পাচ্ছিলেন না। তাঁর চোখেমুখে অসহায়ত্ব ফুটে ওঠে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, বিদ্যুৎ না থাকায় এবং বন্যার কারণে পানি ঢুকে হাসপাতালের জেনারেটর নষ্ট হয়ে যাওয়ায় সেন্ট্রাল অক্সিজেন সেবা বন্ধ হয়ে গেছে। এখন সিলিন্ডার দিয়ে রোগীদের অক্সিজেন দেওয়া হচ্ছে। তবে এই সেবা কতক্ষণ চালানো যাবে তা নিয়ে শঙ্কা রয়েছে। হাসপাতালের জরুরি বিভাগের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বদরুল আমিন বলেন, ‘বন্যার পানির কারণে হাসপাতালের নিচতলার রোগীসহ সব কিছু দোতলা ও তিনতলায় স্থানান্তর করা হয়েছে। জরুরি বিভাগ হয়ে প্রতিদিন যেখানে হাসপাতালে অন্তত ৪০০ রোগী ভর্তি হয়, সেখানে আজ (গতকাল) মাত্র ৪৭ জন রোগী ভর্তি হয়েছে। ’ এ বিষয়ে হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মাহবুবুর রহমান ভূইয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি কালের কণ্ঠকে বলেন, হাসপাতালের জেনারেটর চালু রাখা সম্ভব হচ্ছে না। এ বিষয়ে সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ে যোগাযোগ করা হয়েছে। যত দ্রুত সম্ভব চালুর জন্য সব ধরনের প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে।

উপজেলা পর্যায়ে স্বাস্থ্যসেবা ব্যাহত

সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চার দিন আগে গলা সমান পানিতে তলিয়ে যায়। একইভাবে গোয়াইনঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সও তিন দিন ধরে কোমরপানির নিচে। কানাইঘাট, জৈন্তাপুরসহ বিভিন্ন উপজেলার স্বাস্থ্যকেন্দ্রেও পানি ঢুকে পড়ায় স্বাস্থ্যসেবা ব্যাহত হচ্ছে।

সর্বশেষ - রাজনীতি

আপনার জন্য নির্বাচিত

পরিবারতান্ত্রিক রাজনীতির কারণে বিএনপি আজ সংকটে

উন্নয়ন রুখতেই বিএনপির দেশবিরোধী লবিস্ট নিয়োগ: পরশ

পেট্রোল বোমা আর আগুন সন্ত্রাসের জনক বিএনপি

বকেয়া বেতনের দাবিতে গার্মেন্টস শ্রমিকদের সড়ক অবরোধ

ডাকসুর সাবেক জিএস রাব্বানীকে নিয়ে জনপ্রিয় অভিনেত্রীর স্ট্যাটাস

চীনা ঋণের ফাঁদে নেই বাংলাদেশ: রাষ্ট্রদূত লি জিমিং

বিদ্যালয়ে অনিয়ম: শিক্ষক দুর্নীতিগ্রস্ত হলে শিক্ষার্থীরা কী শিখবে?

দেশের মানুষ ভালো থাকলে, ফখরুল সাহেবের মন খারাপ হয়ে যায়: ওবায়দুল কাদের

দেশে সন্দেহজনক মাংকিপক্স রোগীদের আইসোলেশনের নির্দেশ

বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা ছিলেন বঙ্গবন্ধুর সব প্রেরণার উৎস: তোফায়েল আহমেদ