লন্ডনে গৃহবন্দী তারেক রহমান

adminadmin
  প্রকাশিত হয়েছেঃ   10 November 2021

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান দীর্ঘদিন লন্ডনে বসে সংগঠনটি পরিচালনা করছেন। সাংগঠনিক কর্মকান্ড পরিচালনা সহ সরকার উৎখাতের নানারকম ঘোষণাও লন্ডনে বসে দেন তারেক রহমান।
কিন্তু এক সপ্তাহ লন্ডনেই তারেক রহমানের কোন হদিস পাওয়া যাচ্ছে না। এমনকি বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানকে স্মরণ করার জন্য প্রতিবছর ৭ই নভেম্বর লন্ডনে বিএনপি কর্মসূচীর আয়োজন করলেও এবছর সে অনুষ্ঠানও আয়োজন করা হয়নি। অতীতে ৭ই নভেম্বর উপলক্ষে তারেক রহমান ভিডিও বার্তার মাধ্যমে নিজের বক্তব্য বাংলাদেশে প্রেরণ করলেও এবার তেমন কোন ভিডিও বার্তা প্রকাশ করা হয়নি। হঠাৎ তারেক রহমানের এমন নিখোঁজ হওয়ার কারন কি?

বিএনপির একাধিক নেতা বলছেন, গত এক সপ্তাহ ধরে তারেক জিয়া কোথায় আছেন, কিভাবে আছেন কেউই সঠিকভাবে বলতে পারছেন না। এমনকি বিএনপির জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিন ৭ই নভেম্বরেও তিনি মুখ খোলেননি। কেন এই অবস্থা এর উত্তর খুঁজতে গিয়ে পাওয়া গেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। বর্তমানে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা লন্ডনে অবস্থান করছেন এবং সেখানে তিনি বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ কর্মসূচিতে যোগদান করছেন। আর এই সংস্থা কর্মসূচি যেনো নীরব হয় ও এই কর্মসূচিতে যেন কোন অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা না ঘটে সে জন্য কঠোর অবস্থান নিয়েছে ব্রিটিশ সরকার।
প্রধানমন্ত্রীর যুক্তরাজ্য সফরের আগেই তারেক জিয়াকে সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছিল। এর আগেও তারেক জিয়ার বিরুদ্ধে নাশকতা সৃষ্টি, বাংলাদেশ দূতাবাসে হামলা সহ একাধিক অভিযোগ উত্থাপন করা হয়েছিল। এমনকি ব্রিটিশ এমপি টিউলিপ সিদ্দিকের গাড়িতে হামলার অভিযোগে সন্দেহভাজন অভিযুক্ত হলেন তারেক জিয়া। আর গোয়েন্দা সংস্থাগুলো আগাম তথ্য দিয়েছিল যে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর লন্ডন সফরের সময় তারেক জিয়া কিছু একটা করার চেষ্টা করবে। বিশেষ করে শো-ডাউন করে একটি অস্বস্তিকর পরিস্থিতি তৈরি চেষ্টা করা হবে, আর সেটি যেন না হয় এবং কোন রকম ভাবেই যেন অপতৎপরতা না হয় সেজন্য আগে থেকেই সতর্ক ছিল লন্ডন পুলিশ। এজন্য তারেক রহমানকে এক ধরণের নজরবন্দি করে রাখা হয়েছিল। প্রধানমন্ত্রী যতদিন লন্ডনে থাকবেন ততদিন তারেক জিয়াকে কোনরকম কর্মসূচি না করার জন্য মৌখিক নির্দেশ দেয়া হয়েছিল। আর যদি সেটি লঙ্ঘন করা হয় তাহলে তারেক জিয়ার লন্ডনে থাকাও অনিশ্চিত হয়ে পড়তে পারে এমন বার্তাও তাকে পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দেয়া হয়েছিল। বিএনপি নেতারা মনে করেন সম্ভবত এ কারণেই এই কয়দিন তারেক জিয়া নিশ্চুপ ছিল।

এর আগেও প্রধানমন্ত্রীর যুক্তরাজ্য সফরের সময় বিএনপি-জামাতপন্থীরা নানা রকম প্রতিবাদ বিক্ষোভের নামে দেশের ভাবমূর্তি নষ্টের চেষ্টা করেছে কিন্তু এবার লন্ডনে আগের সে চিত্র দেখা যায়নি। বরং লন্ডনে প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন কর্মসূচিতে আওয়ামী লীগের সদস্যদের বাহিরে সাধারণ প্রবাসী বাঙালিরা যোগদান করেছেন, বিশেষ করে ব্যবসায়ী মহলের উৎসাহ উদ্দীপনা দেখা গেছে লক্ষ্যণীয়ভাবে। এই ব্যবসায়ী মহলের কাছে প্রধানমন্ত্রী দেশে বিনিয়োগের জন্য উদাত্ত আহবান জানিয়েছেন। বাংলাদেশের বিনিয়োগ করলে বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। ফলে প্রধানমন্ত্রীর লন্ডন সফরে এবার একটি জাতীয় ঐক্য ও প্রবাসীদের মধ্যে একটি ঐক্য প্রতিষ্ঠা হয়েছে। আর এটি বুঝতে পেরেই তারেক জিয়া এক ধরনের নীরবতা অবলম্বন করছেন। এটি বিএনপির নেতারা মনে করছেন তাঁদের একটি পরাজয় হিসেবে। আর এই পরাজয়ের কারণেই তারেক জিয়া নিখোঁজ হয়েছেন বলে সংশ্লিষ্ট মহল মনে করছেন।

আন্তর্জাতিক

আপনার মতামত লিখুন :