হতাশায় বিএনপি নেতা-কর্মীরা বিভ্রান্ত!

adminadmin
  প্রকাশিত হয়েছেঃ   10 February 2021

নিউজ ডেস্ক:
রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়ন, বিতর্কিত সিদ্ধান্ত গ্রহণ, যুদ্ধাপরাধীদের সঙ্গে জোট বাধায় বিএনপি এখন উন্মাদ রাজনৈতিক দলে পরিণত হয়েছে। হতাশায় নেতা-কর্মীরা বিভ্রান্ত, আর নেতৃত্ব নিয়ে চলছে ধোঁয়াশা।

জানা গেছে, বিএনপি দীর্ঘদিন ক্ষমতার বাইরে থাকায় নেতা-কর্মীরা দলত্যাগ করা অব্যাহত রেখেছেন। দলীয় কোন্দল, মনোনয়ন বাণিজ্য, কমিটি বাণিজ্য, সিনিয়র-জুনিয়রদের সমন্বয়হীনতার কারণে বিএনপির বিলুপ্তির শঙ্কা প্রকাশ করেছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

তাদের ভাষ্যমতে, বিএনপির অবস্থা যেন কাণ্ডারিবিহীন নৌকার মতো। বিএনপিকে চালায় কে, সে বিষয়ে সন্দিহান নেতা-কর্মীরাও। নেতারা জানেন না কী হচ্ছে, আর কী করবেন। কর্মীরা জানেন না তাদের কী করতে হবে। নেতারা কী বার্তা দেবেন? সব ঝিমিয়ে গেছে। মাঝেমধ্যে কোথাও সভা হলেই নেতা-কর্মীদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। দলের নিয়ন্ত্রণ স্থায়ী কমিটির হাতে নেই। সিনিয়র নেতাদের নিয়মিত পল্টনের অসহ্য বয়ানে দেশবাসী অতিষ্ঠ।

সিনিয়র নেতারা খালেদা জিয়াকে নেতা মানলেও তারেককে নেতা মানতে নারাজ অনেকেই। খালেদা জিয়া অনেকটাই জোর করে তারেককে নেতা বানিয়েছেন। যোগ্যতা না থাকলেও পারিবারিক ক্ষমতাবলে তারেক বিএনপি নেতা হয়েছেন। কিন্তু খালেদার এই সিদ্ধান্ত অমান্য করার সাহস দলীয় নেতা-কর্মীদের নেই।

এদিকে, ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল খুঁড়িয়ে-খুঁড়িয়ে হাঁটছে। বিএনপির অবস্থা যেন প্যারালাইজড রোগীর মতো। চেতনা আছে, কিন্তু কর্ম সাধনের ক্ষমতা নেই।

জ্বালাও-পোড়াও নীতি, খালেদার জেল, অসুস্থতা, তারেক রহমানের দণ্ড, জামায়াতের মতো যুদ্ধাপরাধী দলকে নিয়ে লুকোচুরি খেলায় মেতেছে বিএনপি। রাজনীতির নামে জনগণের সঙ্গে লুকোচুরি খেলছে তারা। নিজেদের দোষেই জনগণের কাছে হাসির পাত্রে পরিণত হয়েছে দলটি। আজকে তাদের মরণদশার জন্য তারা নিজেরাই দায়ী। হারতে হারতে বিলুপ্তির দ্বারপ্রান্তে এখন বিএনপি।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের পরামর্শ- বিএনপিকে ঘুরে দাঁড়াতে হলে বিতর্কিত নেতৃত্বকে পরিবর্তন করতে হবে। বিদেশ থেকে দল চালানো বন্ধ করতে হবে। বাঁচতে হলে জামায়াতকে ছাড়তে হবে। অতীতের অপকর্মের জন্য জনগণের কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে। তবেই হয়তো পাপমোচন হবে বিএনপির। পরিত্রাণের পথ খুঁজে পেতে পারে দলটি।

আপনার মতামত লিখুন :