ঢাকা, আজ সোমবার, ১৩ জুলাই ২০২০

আবারও বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের চ্যাম্পিয়ন ফিলিস্তিন

প্রকাশ: ২০২০-০১-২৬ ০৯:৩৯:৪২ || আপডেট: ২০২০-০১-২৬ ০৯:৩৯:৪২

যতটা প্রতিদ্বন্দ্বিতা হওয়ার কথা ছিল ফাইনাল ম্যাচটি, ততটা লড়াই দেখা যায়নি বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে। ফিলিস্তিনের ২৬ মিনিটের ঝড়েই এলোমেলো হয়ে যায় বুরুন্ডি। এ সময়ের মধ্যে তিন গোল করা মধ্যপ্রাচ্যের দেশটি নিয়ন্ত্রণ নেয় ম্যাচেরও। আফ্রিকান বুরুন্ডি পারেনি আর ঘুরে দাঁড়াতে।

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপে ঢাকা থেকে টানা দ্বিতীয়বারের মতো ট্রফি নিয়ে গেল ফিলিস্তিন। জাতির পিতার নামের টুর্নামেন্টে এই প্রথম কোনো দেশ পরপর দু’বার শিরোপার স্বাদ পেয়েছে। সর্বশেষ ২০১৮ সালেও ট্রফি জিতেছিল ফিলিস্তিন।

 

শনিবার ষষ্ঠ আসরের ফাইনালে আফ্রিকান দেশ বুরুন্ডিকে ১-৩ গোলে হারায় মধ্যপ্রাচ্যের দেশটি। ফাইনাল শেষে চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ দলের হাতে ট্রফি তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ টুর্নামেন্টের অন্যতম পৃষ্ঠপোষক হা-মীম গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ. কে. আজাদ। টুর্নামেন্টের চ্যাম্পিয়ন ফিলিস্তিন দল ট্রফি ও ৩০ হাজার ইউএস ডলার এবং রানার্সআপ বুরুন্ডি ট্রফি ও ২০ হাজার ইউএস ডলার পেয়েছে।

ম্যাচের স্কোরলাইন বলছে ফাইনালটি হয়েছে একপেশে। প্রথম ২৬ মিনিট বাদ দিলে বাকি সময়ে একচ্ছত্র আধিপত্য ছিল প্রথমবারের মতো গোল্ডকাপে খেলতে আসা বুরুন্ডির। বল পজেশনে ফিলিস্তিনের চেয়ে অনেক এগিয়ে ছিল তারা। প্রথমার্ধে বল বুরুন্ডির খেলোয়াড়দের পায়ে ছিল ৬০ শতাংশ। বিরতির পর আরও ৬ শতাংশ বেশি (৬৬ শতাংশ)। কিন্তু পার্থক্য হলো শটে। গোলে নেওয়া তিনটি শটের সব ক’টিতেই গোল করেছে ফিলিস্তিন। বিপরীতে ১২টি শট নিয়ে মাত্র এক গোল পেয়েছে বুরুন্ডি। ৪-২-৩-১ ফরমেশনে খেলা ফিলিস্তিন প্রতিপক্ষকে চেপে ধরে।

ফাইনালের সব উত্তেজনা তারা শেষ করে দেয় ২৬ মিনিটে তিন গোল করে। ম্যাচের শুরুটাও দুর্দান্ত হয় মধ্যপ্রাচ্যের দেশটির। ৩ মিনিটে মোহাম্মদ দারউইসের স্কয়ার পাস থেকে ফরোয়ার্ড খালেদ সালেমের প্লেসিং শট জালে জড়ায়। সাত মিনিট পর দ্বিতীয় গোলের আনন্দে ফিলিস্তিন।

মিডফিল্ডার মাহমুদ আবু ওয়ারদার কর্নার থেকে মুসা সালিমের শট ফিরিয়ে দেন বুরুন্ডি গোলরক্ষক। ফিরতি বলে ডিফেন্ডার ইওয়াই ইয়াজানের পাসে জটলা থেকে গোল করে ব্যবধান বাড়ান সামেহ মারাবা। ২৫ মিনিটে বপ থেকে ফরোয়ার্ড খালেদ সালেমের শট পোস্টে লেগে ফেরত আসে। সেই বলে দারুণ শটে লক্ষ্যভেদ করেন ফরোয়ার্ড লেইথ খারউব। বুরুন্ডির খেলোয়াড়রা অফসাইডের আবেদন করলেও বাংলাদেশের রেফারি মিজানুর রহমান সাড়া দেননি।

প্রথমার্ধে তিন গোল হজম করা বুরুন্ডি হাল ছেড়ে দেয়নি। তাকিয়ে ছিল গোল্ডকাপের এবারের আসরে দুটি হ্যাটট্রিক করা এনশিমিরিমানা জসপিনার দিকে। এদিন পারেননি টুর্নামেন্টে সাত গোল করে গোল্ডেন বুট জেতা জসপিনা। শুধু গোল্ডেন বুটই জেতেননি, সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার গোল্ডেন বলও জেতেন তিনি। কিন্তু শিরোপা মঞ্চে জসপিনা পারেননি দলকে সাফল্য এনে দিতে। অবশ্য ৫৮ মিনিটে বপের কাছ থেকে ডান পায়ের শটে ফিলিস্তিনের জালে বল পাঠান ডিফেন্ডার ডিকুয়ামানা। ফাইনালের আগ পর্যন্ত কোনো গোল হজম করেনি ফিলিস্তিন। বাকি সময়ে আর পারেনি প্রথমবার বাংলাদেশে ফুটবল খেলতে এসে চমক দেখানো বুরুন্ডি। আফ্রিকান এ দেশটির কাছে সেমিফাইনালে হেরেছিল বাংলাদেশ।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এই টুর্নামেন্টে ছয়টি দল অংশ নেয়। আগের পাঁচ আসরের মতো এবারও ট্রফিহীন বাংলাদেশ।