ঢাকা, আজ বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯

বোলিং,ফিল্ডিং বেশি ভুগিয়েছে-সাকিব

প্রকাশ: ২০১৯-০৭-০৭ ০৯:০৯:২৮ || আপডেট: ২০১৯-০৭-০৭ ০৯:০৯:২৮

বিশ্বকাপ ইতিহাসে সর্বকালের সেরা অল রাউন্ডার সাকিব আল হাসান। এই আসরে ৬০৬ রানের পাশে ১১ উইকেট শিকার করেছেন এই অল রাউন্ডার। এমন পারফরমেন্সে সন্তুস্ট। তবে বাংলাদেশ দলের স্বপ্নভঙ্গের পেছনে কারন বোলিং,ফিল্ডিং। শনিবার টিম হোটেলের সামনে দেয়া সাক্ষাতারে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার স্পষ্টভাষায় বলেছেন তা। নিউজজি২৪ডট কম-এর ক্রীড়া সম্পাদক সাক্ষাতকারের চৌম্বক অংশ উপস্থাপন করেছেন।

প্রশ্ন : অনেক রেকর্ড করলেন, ব্যক্তিগত রেকর্ড। ব্যক্তিগত সন্তুস্টির জায়গা থেকে বলবেন কিছু ?

সাকিব : মানে, কি বলব (হাসি)। ব্যক্তিগত দিক থেকে খুবই ভালো। খুবই খুশি। তবে দলের দিক থেকে হতাশ।

প্রশ্ন : এবার বাংলাদেশ দলের সবচেয়ে বড় ব্রান্ড আপনি। আমরা দেখাতে পেরেছি  আমাদের একজন সাকিব আছে। বাংলাদেশ তিনটা ম্যাচ জিতেছে, তিনটাতেই আপনি ম্যান অব দ্য ম্যাচ ?

সাকিব : যেভাবে ওয়ার্ল্ড কাপটা গেল, তাতে আমি খুশি তবে দলের দিক দিয়ে হতাশ।

প্রশ্ন : আপনি তো দেখিয়ে দিলেন বাংলাদেশের কেউ সেরা হতে পারে। তবে দলের অন্যদের সাথে কি আপনার এ ব্যাপারে পরামর্শ হয় ?

সাকি্ব : আমার  সাথে সবার কথা হয়, আমি নিজেও সবার কাছ থেকে পরামর্শ নেই ।

প্রশ্ন : এবারের ওয়ার্ল্ড কাপে আসার আগে  বডি ওয়েট কমিয়েছেন ? একটা প্লান নিয়ে এসেছিলেন। সাকিব আল হাসানের গোপন রহস্যটা কোথায়। আই্এলে যাওয়ার আগেও বলেছিলেন ওয়ার্ল্ড কাপে অন্যরকম ফোকাস করবেন ?

সাকিব : এবার আসার আগে বলেছি ওয়ার্ল্ড কাপে প্রিপারেশনের আগে যা কিছু দরকার করব। এবং করেছি। সফল হব, গ্যারান্টি ছিল না। যেহেতু সাকসেসফুল হয়েছি, তাতে খুশি।

প্রশ্ন : সালাউদ্দিন স্যার এর সাথে আলাদাভাবে কাজ করেছেন ?

অনেক প্রভাব ফেলেছে। স্যার আইপিএলে ছিল ২ সপ্তাহ। ভালবাবে অনেক কাজে লাগাতে পেরেছি। বেশ কিছু জায়গায় প্লান করে উন্নতি করতে পেরেছি।

বাংলাদেশ দলের সফলতার ক্ষেত্রে কোন জায়গায় গ্যাপ ছিল ?

সাকিব : ওটাতো ক্যাপ্টেন,কোচ ভাল বলতে পারবেন।

প্রশ্ন : অলমোস্ট প্রতিটি ম্যাচে শেষ দিকে আউট হয়েছেন ?  আপনি যতোক্ষন উইকেটে, ততোক্ষন একটা আশা ছিল ? এক একজন করে সঙ্গীহারা হয়েছেন। জেতার সম্ভাবনাও তো ছিল ? ওই সময়ে মেন্টাল অবস্থা কেমন ছিল।

সাকিব : যদি নিজে শেষ করে আসতে পারতাম,ভাল লাগতো। এমন নয় যে,  লাস্ট ব্যাটসম্যান পর্যন্ত খেলতে পেরেছি, তা কিন্তু নয়।  ওরকম কোন কারন নয়। অনেকগুলো উইকেট ছিল, যেখানে বোলিংয়ে যতো রান দিয়েছি,  অতো  করা সম্ভব নয়, কিংবা অতো রানের উইকেট নয়। আসলে ব্যাটিংয়ের চেয়ে বোলিং,ফিল্ডিং বেশি ভুগিয়েছে আমাদেরকে।

প্রশ্ন : মাশরাফি যেখানে রেখেছেন, সেখানে তো আপনি আবার লিডারশিপে আসবেন ? সেটাকে চ্যালেঞ্জিং মনে করেন?

সাকিব : পরের প্রশ্ন। প্লিজ।

প্রশ্ন : আগামী বছর তো টি-২০’র ওয়ার্ল্ড কাপ আসবে। এখন থেকেই কি ওটা নিয়ে ফোকাস করবেন ?

ম্যানেজমেন্টের প্রশ্ন আমাকে কেন ।

প্রশ্ন : আপনার অসাধারন পারফরমেন্সের পরও দিন শেষে সেমিতে কোয়ালিফাই করতে পারিনি। আরো ক’একটা পারফরমেন্স আছে।  কোন জায়গায় মিস করেছেন।

সাকিব : এগুলো নিয়ে এনালাইসিসস করতে হবে। কোন জায়গা গুলো আমরা মিস করেছি।  আমি নিশ্চিত টিম ম্যানেজমেন্ট, কোচিং স্টাফ এগুলো এনালাইসিস করবে। ভবিষ্যতে এগুলো নিয়ে কাজ হবে।

প্রশ্ন : আপনি নিজে শীর্ষে থেকে শেষ করেছিলেন, গতকাল পর্যন্ত সবার উপর ছিলেন, আজ   রোহিত চলে গেল। টূর্নামেন্ট সেরা পারফরমার হওয়ার প্রবল সম্ভাবনা ছিল আপনার। আপনার হাত ধরে বাংলাদেশ ফাইনালে উঠতে পারলে তো আপনি যদি টূর্নামেন্ট সেরা হতে পারতেন। এ নিয়ে একটা আক্ষেপ কি থাকছে না ?

সাকিব : ওসব চিন্তা হয় একটু হয়, খুব একটা মাথায় যে থাকে, তা কিন্তু নয়। তবে যতোটুকু সুযোগ পেয়েছি এবং যা কিছু করতে পেরেছি, তাতেই আমি খুশি।

প্রশ্ন : আপনি তো অনেকগুলো বড় ইনিংস খেলেছেন। তার মধ্যে আলাদা করে রাখবেন কোন ইনিংসকে। মানে ফেভারিট ইনিংস ?

সাকিব : ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সেঞ্চুরি মনে হয় আমার কাছে প্রিয় ইনিংস।

প্রশ্ন : আপনি তো সব দলের সঙ্গে খেলেছেন। কোন দু’টি দলের ফাইনাল খেলার সম্ভাবনা দেখছেন ?

ডিফিক্যাল্ড বলা, তবে ভারত,ইংল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে ফাইনাল খেলার সম্ভাবনা আছে।

ভাইস ক্যাপ্টেন থেকে ক্যাপ্টেনের প্রস্তাব দেয়া হলে ?

পরে কথা বলব (হাসি)।