logo
মঙ্গলবার , ১৭ জানুয়ারি ২০২৩ | ১৭ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. অন্যান্য
  2. অর্থনীতি
  3. আন্তর্জাতিক
  4. ক্যারিয়ার ভাবনা
  5. খেলা
  6. জাতীয়
  7. টেক নিউজ
  8. দেশের খবর
  9. প্রবাস
  10. ফিচার
  11. বিনোদন
  12. রাজনীতি
  13. লাইফস্টাইল
  14. সম্পাদকীয়
  15. সাফল্য

সরকার হটানো টটানো বাদ দেন

প্রতিবেদক
admin
জানুয়ারি ১৭, ২০২৩ ৯:৪২ পূর্বাহ্ণ

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বিএনপির উদ্দেশে বলেছেন, সরকার হটানো-টটানো বাদ দেন। আসেন ঠান্ডামাথায়। বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচন হবে। জনগণের জানমাল রক্ষায় আওয়ামী লীগ রাজধানীতে শান্তি সমাবেশ করছে দাবি করে তিনি বলেন, আমরা ক্ষমতায় আছি, সরকারে আছি। আমাদের দায়িত্ব দেশের মানুষের জানমালের নিরাপত্তা দেওয়া। আর ওদের আয়োজন হচ্ছে অশান্তি ও বিশৃঙ্খলার জন্য বিক্ষোভ সমাবেশ।

সোমবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত সমাবেশে এসব কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশের পালটা কর্মসূচি হিসাবে আওয়ামী লীগ ‘সন্ত্রাস ও নৈরাজ্যের’ প্রতিবাদে এই সমাবেশ করেছে। সমাবেশে দলের শীর্ষ নেতারা বক্তৃতা করেন। একই সময় ফার্মগেট ও শহিদ মিনারে দুটি সমাবেশ করেছে আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন যুবলীগ। বিকালে ভাটারায় ১০০ ফুট রাস্তার মুখে আরেকটি সমাবেশ করেছে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ। এই সমাবেশেও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা বক্তৃতা করেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, ফখরুল সাহেব আমার কথার উত্তর দিতে চান না। তিনি নাকি দেন না। আমার কথার উত্তর দেওয়ার মতো সামর্থ্য, সত্য কথা বলার সাহস ফখরুলের নেই। আমি সত্য কথা বলি। আর ফখরুলরা মিথ্যাচার করে, বিষোদ্গার করে। এটাই হচ্ছে তাদের রাজনীতি। তিনি বলেন, বিএনপির নেতারা অসুস্থ হলে হাসপাতালে যাবেন, এটা নিয়ে কটাক্ষ করার কিছু নেই। তবে অসুস্থ রাজনীতি করে অসুস্থ হলে অসুস্থ বিএনপিকেও হাসপাতালে যেতে হবে। তাদের হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে।

ওবায়দুল কাদের বিএনপির উদ্দেশে বলেন, নির্বাচনে আসতে ভয় পাচ্ছেন কেন? ভয় পাওয়ার কিছু নেই। জানি শেখ হাসিনার উন্নয়ন, অর্জন দেখে দেশের মানুষ খুশি; কিন্তু আপনাদের মন খারাপ। নির্বাচনে এলে বিএনপি হেরে যাবে-এই ভয়ে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মাঝেমধ্যে রেগে যান। হেরে গেলে রেগে যান। হারার আগে হারছেন কেন? আপনাদের যদি এতই জনপ্রিয়তা থাকে, সেই সক্ষমতা নির্বাচনে এসে দেখান। সেই সক্ষমতার পরীক্ষাটা নির্বাচনে দেখান। আমরা রেডি, আপনারা আসেন।

সেতুমন্ত্রী বলেন, আমেরিকান সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচনের কথা। আমাদের দেশে সর্বপ্রথম আইন দিয়ে নির্বাচন কমিশন হয়েছে। ত্রুটিমুক্ত অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন করবে নির্বাচন কমিশন। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসহ সবই থাকবে ইসির অধীনে। শেখ হাসিনার সরকার অন্যান্য দেশের মতো রুটিন দায়িত্ব পালন করবে।

দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, আপনারা প্রস্তুত হয়ে যান। কাজ আছে সামনে। বিশৃঙ্খলা ঘটানো, নাশকতার চেষ্টা হবে। মানুষের জানমাল নিয়ে খেললে খেলা হবে। তিনি বলেন, মানুষের জানমাল নিয়ে খেলবেন আর আমরা দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে ললিপপ খাব, তা হবে না।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে আরও বক্তৃতা করেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম ও মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, দীপু মনি প্রমুখ। সমাবেশ সঞ্চালনা করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির।

বিএনপি নেতাদের জন্য টিকার এক্সট্রা ডোজ রাখা হয়েছে-তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী : সরকার করোনাভাইরাসের টিকার বুস্টার ডোজ দিয়েছে, এখন বিএনপি নেতাদের জন্য এক্সট্রা ডোজ রাখা হয়েছে বলে মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক এবং তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। তিনি বলেন, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, গয়েশ্বর বাবু, মির্জা আব্বাসসহ ওদের নেতাদের জন্য আমরা এক্সট্রা ডোজ রেখেছি, আপনারা এক্সট্রা ডোজ নেন। সুস্থ থাকুন, সরকারের সমালোচনা করুন। কিন্তু দেশে অশান্তি সৃষ্টি করবেন না।

ভাটারা (ঢাকা) প্রতিনিধি জানান, রাজধানীর ভাটারায় ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের অবস্থান কর্মসূচি ও শান্তি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপির আন্দোলন ভুয়া। বিএনপির নেতা নেই, ৫৪ দলের কোনো নেতা নেই, সব ভুয়া। তাদের বড় বড় নেতারা হাসপাতালে ভর্তি। আন্দোলন রেখে এ সময় হাসপাতালে কেন? আরও নেতা হাসপাতালে যেতে পারে।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি বশির উদ্দিন। বক্তৃতা করেন দলের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, কেন্দ্রীয় নেতা ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, একেএম রহমত উল্লাহ এমপি, হাবিব হাসান এমপি, মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও জাতীয় কমিটির সদস্য ওয়াকিল উদ্দিন প্রমুখ। সমাবেশ সঞ্চালনায় ছিলেন ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম মান্নান কচি। সমাবেশে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের বিভিন্ন শাখার নেতাকর্মীরা যোগ দেন।

সর্বশেষ - রাজনীতি

আপনার জন্য নির্বাচিত

বৈশ্বিক সংকট মোকাবিলায় নেতৃত্ব দেবে কৃষক: ডেপুটি স্পিকার

সংবিধান অনুযায়ী আগামী নির্বাচন হবে: প্রধানমন্ত্রী

পশ্চিমাদের ‘অস্ত্র বোঝাই বিমান’ ভূপাতিত করার দাবি রাশিয়ার

মার্কিন নিষেধাজ্ঞার জের : বাংলাদেশের জলসীমায় প্রবেশের অনুমতি পাচ্ছে না ৬৯ জাহাজ

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলা হাইকোর্টের কার্যতালিকায়

রায়হানের ওপর পুলিশের বর্বরতা, শরীরে ১১১টি আঘাতের চিহ্ন

পরমাণু অস্ত্রের হুমকি থেকে বিশ্বকে মুক্ত রাখার আহ্বান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

ক্ষতিগ্রস্ত চাষিদের বীজ ও সার দেবে সরকার: কৃষিমন্ত্রী

‘পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে জ্বালানি তেলের দাম পুনরায় সমন্বয় করা হবে’

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুর: সিসিটিভির ফুটেজ দেখে ২ মাদ্রাসাছাত্র আটক