logo
বৃহস্পতিবার , ২৭ অক্টোবর ২০২২ | ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. অন্যান্য
  2. অর্থনীতি
  3. আন্তর্জাতিক
  4. ক্যারিয়ার ভাবনা
  5. খেলা
  6. জাতীয়
  7. টেক নিউজ
  8. দেশের খবর
  9. প্রবাস
  10. ফিচার
  11. বিনোদন
  12. রাজনীতি
  13. লাইফস্টাইল
  14. সম্পাদকীয়
  15. সাফল্য

শান্তিপূর্ণ ও স্থিতিশীল বাংলাদেশ চাই: চীনা রাষ্ট্রদূত

প্রতিবেদক
admin
অক্টোবর ২৭, ২০২২ ১০:০৬ পূর্বাহ্ণ

বাংলাদেশে চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং বলেছেন, উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে চীন একটি শান্তিপূর্ণ ও স্থিতিশীল বাংলাদেশ চায়। শান্তি ও স্থিতিশীলতা উন্নয়নের পূর্বশর্ত। তাই যেকোনো সমস্যা গণতান্ত্রিক ও শান্তিপূর্ণ উপায়ে সমাধান করা উচিত। বুধবার (২৬ অক্টোবর) জাতীয় প্রেসক্লাবে কূটনৈতিক সংবাদদাতাদের সংগঠন ডিকাব আয়োজিত ‘ডিকাব টক’ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। চীনা রাষ্ট্রদূত বলেন, চীন বাংলাদেশকে খুবই ভালো কৌশলগত অংশীদার হিসেবে বিবেচনা করে এবং দুই দেশের মধ্যে সম্পর্কোন্নয়ন অব্যাহত রেখেছে। রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধানে চীন নীরবে কাজ করে যাচ্ছে বলেও জানান তিনি।

লি জিমিং বলেন, বাংলাদেশে অনেক চীনা কোম্পানি বিনিয়োগে আগ্রহী। চীনারা এখন বাংলাদেশকে ইতিবাচকভাবে দেখে। সে কারণে আমরা স্থিতিশীল বাংলাদেশ দেখতে চাই। তিনি বলেন, চীন চায় না বঙ্গোপসাগরের যে অঞ্চল বৈশ্বিক মনোযোগের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে, সেখানে কোনো অস্ত্র প্রতিযোগিতা হোক। তিনি বলেন, ভারতের সঙ্গে আমাদের কোনো কৌশলগত বৈরিতা নেই। আমরা যদি একসঙ্গে কাজ করি, তাহলে অনেক আঞ্চলিক সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।

মিয়ানমারের সেনাবাহিনী রোহিঙ্গাসহ দেশটির বেসামরিক নাগরিকদের নিপীড়ন ও হত্যা করার পরও মিয়ানমার ইস্যুতে চীন কেন তাদের পক্ষে ভোট দিয়েছে জানতে চাইলে লি জিমিং বলেন, চীন মনে করে না যে পশ্চিমা চাপ মিয়ানমারের সমস্যা সমাধানে সহায়ক হবে। সমস্যার দ্বিপাক্ষিকভাবে সমাধান করতে হবে। এই সমস্যা সমাধানে এশিয়ান উপায় আছে। ইউরোপীয় বা আমেরিকান উপায় এই সমস্যা সমাধানে সাহায্য করবে না। তাহলে কেন রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান হচ্ছে না? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, চীন এই লক্ষ্যে আন্তরিকভাবে এবং নীরবে কাজ করছে। অবশ্যই এর প্রভাব দেখা যাবে।

বাংলাদেশ সীমান্তে মিয়ানমারের শক্তিবৃদ্ধি এবং বাংলাদেশে গোলা পড়ার বিষয়টি নিয়ে এক প্রশ্নে লি জিমিং বলেন, ‘সীমান্তের ঘটনায় মিয়ানমারে চীনা রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে আলাপ করেছি। তিনি মিয়ানমারের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেছেন। মিয়ানমার ইতিবাচক সাড়া দিয়েছে। তারা এখন সীমান্তের সংঘাত নিয়ে টেনশনে আছে। তারা বলেছে, সেটা নিরসন হলেই প্রত্যাবাসন শুরু সম্ভব হবে।’

সর্বশেষ - দেশের খবর