ঢাকা, আজ শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

রাজবাড়িতে কথিত সেজদা বাবার আস্তানা তছনছ করে দিল সাহসী যুবকরা

প্রকাশ: ২০১৯-০৩-২২ ১৪:৪১:৫৮ || আপডেট: ২০১৯-০৩-২২ ১৪:৪১:৫৮

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সেজদা বাবা হিসাবে পরিচিত সামছু নামের এক লোক (৪৫) রাজবাড়ী জেলার চান্দনি ইউনিয়নে আস্তানা ও মাজার খুলে খানকা তৈরি করেছিল। মানুষকে সে বলতো, তার পায়ের নিচে সেজদা দিলে সকল কঠিন রোগ ও মনের বাসনা পূরণ হয়। এমন নিয়তে বহু মহিলারা এসে সেজদা করত দরবারে। সহজ সরল মানুষের বিশ্বাস কে কাজি লাগিয়ে এসব ভন্ডামী করে আসছিল সে। এসব করে হাতিয়ে নিত মোটা অংকের টাকা। অবাদে মাদক সেবন ও মহিলাদের নিয়ে রাত্রীযাপনের অভিযোগও আছে তার বিরুদ্ধে। এমনকি তার আলাদা বাহিনীও ছিল এলাকায়। তাই ভয়ে মুখ খুলতে সাহস করতা না কেউ। এসব কাজের বিরুদ্ধে এলাকায় ছিল চাপা ক্ষোভ।

গত কিছুদিন আগে ভন্ড কথিত বাবার পায়ের নিচে মহিলাদের সেজদা দেয়ার কিছু ছবি ফেইসবুকে ভাইরাল হলে সারাদেশে তীব্র নিন্দার ঝড় উঠে। নাম পকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন যুবক জানায়, এসব ভন্ডামীর ভয়াবহ আকার ধারন করায় ওই এলাকার চরমোনাই পীর সাহেবের কিছু অনুসারীরা এলাকার যুব সমাজ ও সচেতন জনতাকে নিয়ে ভন্ড বাবার আস্তানা গুড়িয়ে দেয়। মাজারের সাইনবোর্ড খুলে ভেংগে ফেলে দেয়। ভন্ডামীর সকল জিনিসপত্র আগুন দিয়ে পুড়িয়ে ফেলে। এসময় সেজদা বাবা ও তার লোকজন পালিয়ে যায়। এসময় যুব সমাজ এলাকায় আর কখনও এমন ভন্ডামী কাজ চলতে দিবে না বলেও ঘোষণা দেয়।

আস্তানা উচ্ছেদ এর খবর ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন এলাকার মানুষ উচ্ছ্বসিত ও আনন্দিত হয়। যুবকরা বলেন, সাহস করে আমাদের কিছু ভাই এলাকার মানুষকে বুঝিয়ে লোকজনকে সাথে নিয়ে ভন্ড মাজার ব্যবসায়ীদের আস্তানা গুড়িয়ে দেয়। এলাকাবাসী জানান, ভন্ড সেজদা বাবার মাজার গুড়িয়ে দেবার ফলে ভয়াবহ শিরক বিদয়াত থেকে রক্ষা পেল এলাকার মানুষ। আমরা সাহসী যুবকদের সাধুবাদ জানাই। -পাবলিক ভয়েজ