ঢাকা, আজ শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

চীন থেকে আসছে আরও ছয়টি জাহাজ

প্রকাশ: ২০১৯-০৩-২২ ১৪:১২:১৬ || আপডেট: ২০১৯-০৩-২২ ১৪:১২:১৬

চায়না ন্যাশনাল মেশিনারি ইমপোর্ট অ্যান্ড এক্সপোর্ট কর্পোরেশন (সিএমসি) থেকে বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশন (বিএসসি) জন্য আরও ছয়টি জাহাজ আনা হবে। এর আগে সিএমসি থেকে বিএসসির জন্য ছয়টি জাহাজ সংগ্রহ করা হয়েছে।

শুক্রবার চীনের বেইজিংয়ে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরীর সঙ্গে সিএমসির ভাইস প্রেসিডেন্ট ক্যাঙ্গ হুবাইওয়ের সঙ্গে বৈঠক করে এ সিদ্ধান্ত নেন।

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম খান স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বলা হয়, চীন সফররত আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী বেইজিংয়ে সিএমসি অফিস পরিদর্শন করেন। সেখানে তাকে স্বাগত জানান সিএমসির ভাইস প্রেসিডেন্ট ক্যাঙ্গ হুবাইও। সেখানে তারা বৈঠক করেন।

বৈঠকে ঢাকার চারপাশের সার্কুলার নৌপথ, সার্কুলার সড়ক, মেরিন একাডেমিতে বিশ্বমানের নাবিক গড়ে তুলতে চীনের সহযোগিতা প্রদানের বিষয়ে আলোচনা হয়। এ ছাড়া চীন থেকে বিএসসির জন্য আরও ৬টি জাহাজ সংগ্রহের বিষয়েও আলোচনা হয়।

এ সময় বিএসসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক কমডোর ইয়াহ ইয়া সৈয়দ এবং চীনে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এম ফজলুল করিম উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, বিএসসিকে একটি লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করতে ১ হাজার ৫৩৭ কোটি টাকা ব্যয়ে চীন থেকে ছয়টি জাহাজ সংগ্রহের প্রকল্প গ্রহণ করা হয়।

এর মধ্যে চীন আর্থিক সহায়তা দিয়েছে এক হাজার কোটি টাকা, বাকি টাকা বাংলাদেশ সরকারের। এ পর্যন্ত পাঁচটি জাহাজ বিএসসি’র বহরে যুক্ত হয়েছে। জাহাজ ‘এম টি বাংলার অগ্রগতি’ এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে প্রতিমন্ত্রী ২১ মার্চ রাতে চীন গমন করেন। বিএসসির বহরে আরও ছয়টি জাহাজ যুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এজন্য ২৫০ কোটি মার্কিন ডলার একনেক এ অনুমোদন দেয়া হয়।

সংগৃহীত জাহাজগুলো হলো, এম.ভি বাংলার জয়যাত্রা, এম.ভি বাংলার সমৃদ্ধি, এম.ভি বাংলার অর্জন এবং এম.ভি বাংলার অগ্রদূত।